27.9 C
Chittagong
বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪
প্রচ্ছদদিনের সেরাজাবেদ আবছারের ৪ ভাইয়ের বিরুদ্ধে ‘হত্যা চেষ্টা’ মামলা নিতে আদালতের নির্দেশ

জাবেদ আবছারের ৪ ভাইয়ের বিরুদ্ধে ‘হত্যা চেষ্টা’ মামলা নিতে আদালতের নির্দেশ

  নিজস্ব প্রতিবেদক

আনোয়ারার বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল কবির চৌধুরীর ছেলে নুরুল ইসলাম মিঠুকে ‘হত্যা চেষ্টা’র অভিযোগ মামলা (এফআইআর) হিসেবে গ্রহণ করতে আনোয়ারা থানা পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন চট্টগ্রামের একটি আদালত।

গত ৬ মে, সোমবার ভুক্তিভোগীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে (সিআর মামলা নং ২৬৬/২৪) চট্টগ্রাম জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৬ নম্বর আদালতের বিচারক মুহাম্মদ হারুন এই আদাশে দেন। আদালতের নির্দেশে গত ৯ মে বাদীর এজাহার এফআইআর দায়ের গ্রহণ করেন আনোয়ারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহেল আহাম্মদ।

অভিযুক্তরা হলেন, আনোয়ারা উপজেলার মৃত নুরুল আবছার চৌধুরীর ছেলে প্রকৌশলী জাহেদ আবছার চৌধুরী (৪২), চন্দনাইশ উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলী জুনাইদ আবছার চৌধুরী (৪০), মঈনউদ্দীন আবছার চৌধুরী (৪৫) এবং আকবর আবছার চৌধুরী (৫০)। অভিযুুক্ত চারজনই চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল পরিচালক পর্ষদের ভাইস প্রেসিডেন্ট জাবেদ আবছার চৌধুরীর ছোটভাই।

বিষয়টি ক্লিক নিউজকে নিশ্চিত করেছেন ভুক্তভোগী নুরুল ইসলাম মিঠু। তিনি বলেন, অজ্ঞাত কয়েকজনকে নিয়ে জাবেদ আবছারের চার ভাই আমাকে হত্যা করতে চেয়েছিল। হামলায় আহত হয়ে আনোয়ারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা শেষে আনোয়ারা থানায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে গেলে মামলা নিতে অনীহা প্রকাশ করে পুলিশ। পরে আদালতে হাজির হয়ে সিআর মামলা দায়ের করলে জ্ঞ আদালত মামলা আমলে নিয়ে থানাকে উক্ত মামলার এফআইয়ার করতে আদেশ দেন।

জাবেদ আবছার চৌধুরী এজাহার সূত্রে জানা গেছে,আনোয়ারা থানাধীন ধানপুরা বাজারের পূর্ব পাশে অছিউর রহমান দারোগা মসজিদের পাশে বাদী মিঠুর নিজের জমি রয়েছে। ৩ মে, শুক্রবার সকালে কতিপয় ৫/৬ জন অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসী তার স্বত্ব ও দখলীয় ভুমি থেকে বড় একটি রেইনট্রি গাছ ও একটি গামারী গাছ কেটে ফেলেছে। গাছ কাটার কারণ জানতে চাইলে অভিযুক্ত জাহেদ আবছার চৌধুরী হত্যার উদ্দেশ্যে ধামা দিয়ে বাদীর মাথায় কোপ দেয়। অভিযুক্তকারী মঈনউদ্দীন আবছার চৌধুরী ছুরি দিয়ে আঘাত করলে বাদীর মুখের ডান পাশে লাগে। পরে জুনাইদ আবছার চৌধুরী ও আকবর আবছার চৌধুরী গাছের ডাল দিয়ে বাদী মিঠুর মুত্যু নিশ্চিত করতে এলোপাতাড়ি মারতে থাকে।

খবর পেয়ে বাদী মিঠুর স্ত্রী জয়নব বেগম স্বামীকে বাঁচানোর জন্য আসলে তাকেও কিল, ঘুষি ও লাথি মেরে অশ্লিলতাহানী করেন অভিযুক্তরা। এঘটনায় চিকিৎকার শুনতে পেয়ে আশেপাশের মানুষ ঘটনাস্থলে ছুটে আসলে পালিয়ে যায় অভিযুক্তরা। পরে স্থানীরা তাদেরকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য আনোয়রা উপজেলা স্বাস্থ্য কমেপ্লেক্সে পাঠায়।

জানা গেছে, হামলায় আহত হয়ে আনোয়ারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা শেষে আনোয়ারা থানায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে গেলে মামলা নিতে অনীহা প্রকাশ করে পুলিশ। পরে আদালতে হাজির হয়ে সিআর মামলা দায়ের করে হামলার শিকার প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধার পরিবার। বিজ্ঞ আদালত মামলা আমলে নিয়ে থানাকে উক্ত মামলার এফআইয়ার করতে আদেশ দেন।

আদালতের নির্দেশে মামলা গ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আনোয়ারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহেল আহাম্মেদ। তিনি বলেন, অভিযোগটি মামলা হিসেবে গ্রহণ করা হয়েছে। তদন্ত চলমান।

জানতে চাইলে অভিযুক্ত জুনায়েদ আবছার চৌধুরী বলেন, এই বিষয়ে আমার কিছুই জানা নাই।

হত্যা চেষ্টা মামলার বিষয়ে জানতে আকবর আবছার চৌধুরীকে মুঠোফোনে কল করা হলে প্রতিবেদককে উল্টাপাল্টা (অশ্লীল) কথা বলেন তিনি। তিনি বলেন, আপনাকে সাংবাদিকতা করার লাইসেন্স কে দিয়েছে। এরপর নানানভাবে এই প্রতিবেদককে চাঁদাবাজ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার চেষ্টা করেন আকবর।

 

 

সর্বশেষ